রবিবার, ১৯-মে ২০১৯, ০৭:২৮ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • হাসপাতালেও অবহেলায় পড়ে আছেন সেই বৃদ্ধা 

হাসপাতালেও অবহেলায় পড়ে আছেন সেই বৃদ্ধা 

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০৭:০৩ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, সিরাজগঞ্জ: স্বজনরা রেল স্টেশনে ফেলে যাওয়ার পর কয়েকদিন মানবেতর জীবন-যাপন করেছেন পক্ষাঘাতগ্রস্ত অজ্ঞাত এক নারী। তার সেই দূরাবস্থা দেখে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন কয়েকজন যুবক। কিন্তু হাসপাতালেও প্রয়োজনীয় সেবা পাচ্ছেন না সেই নারী। 

সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুলন্নেসা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডের মেঝেতে অযত্নে ও অবহেলায় পড়ে আছেন তিনি। মস্তিস্কে জখম আছে কি-না, তা খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার সকালে চিকিৎসক তার সিটিস্ক্যান করার পরামর্শ দিলেও অর্থের অভাবে সেটিও সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে হাসপাতাল গিয়ে দেখা যায়, বৃদ্ধাকে হাসপাতাল থেকে খাবার সরবরাহ করা হলেও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন বা গোসল করানো হয়নি। ওই অবস্থাতেই হাসপাতলের মেঝেতে পড়ে আছেন তিনি। পাশ দিয়ে কেউ যাওয়ার সময় একটু সাহায্যের আশায় ফ্যাল ফ্যাল করে তাকাচ্ছেন তিনি।

বৃদ্ধাকে দেখভালের জন্য একজন অ্যাটেনডেন্ট প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে ওয়ার্ডের দায়িত্বরত ইনচার্জ ডাঃ মনোয়ার হোসেন বলেন, ওয়ার্ডে আগে থেকেই এ ধরনের একজন পুরুষ রোগী আছেন। তাকে নিয়েই আমরা বেশ ঝামেলায় আছি। তার ওপর এই রোগীকে নিয়ে আমরা নতুন করে বিপাকে পড়েছি। জরুরি বৃদ্ধার সিটিস্ক্যান করা প্রয়োজন, কিন্তু সিটিস্ক্যান অর্থেরও জোগান নেই। 

তবে হাসপাতালের আরএমও ডাঃ ফরিদুল ইসলাদের দাবি, তাকে যথা সম্ভব চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

হাসপাতালের সঙ্গে সংযুক্ত সমাজসেবা কর্মকর্তা হাসান শরীফ বলেন, চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ওষুধ সমাজসেবা অফিস থেকে সরবরাহ করা সম্ভব। তবে তার উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য একজন অ্যাটেনডেন্ট দরকার। 

বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করা যুবক মামুন বিশ্বাস বলেন, চরম নির্মমতা ও নিষ্ঠুরতার পরিচয় দিয়ে বৃদ্ধাকে বেশ কিছুদিন আগে রেল স্টেশন এলাকায় ফেলে রেখে যান তার স্বজনরা। পক্ষাঘাত রোগে আক্রান্ত ওই নারীর ডান হাত, ডান পা, মুখের ডান অংশ নিশ্চল থাকায় স্পষ্ট করে কথা বলতে পারেন না। মৃত্যুযন্ত্রণা নিয়ে স্টেশনের পাশের খোলা জায়গায় পড়ে ছিলেন। দীর্ঘদিন গোসল করতে না পারায় এবং কাপড়েই মলমূত্র ত্যাগ করায় তার সারা শরীরে দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছিলো। মশা-মাছিসহ বিভিন্ন পোকামাকড়ের কামড়ও সহ্য করছিলেন এই বৃদ্ধা। খবর পেয়ে রোববার আমরা তাকে গোসল করিয়ে নতুন পোশাক পরিয়ে দেই। এরপর হাসপাতালে ভর্তি করি। বুধবার গিয়ে আমরা তার সিটিস্ক্যানও করাবো। 
শীর্ষকাগজ/এসএসআই