শনিবার, ২৩-জুন ২০১৮, ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন
  • স্বাস্থ্য
  • »
  • প্রাথমিকে শনাক্ত হলে ৬০ শতাংশ কিডনি বিকল প্রতিরোধ সম্ভব

প্রাথমিকে শনাক্ত হলে ৬০ শতাংশ কিডনি বিকল প্রতিরোধ সম্ভব

sheershanews24.com

প্রকাশ : ০৩ মার্চ, ২০১৮ ১০:১৭ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, ঢাকা: প্রাথমিক অবস্থায় কিডনি রোগের উপস্থিতি ও এর কারণ শনাক্ত হলে ৫০ থেকে ৬০ ভাগ কিডনি বিকল প্রতিরোধ করা সম্ভব। চিকিৎসা করে নয় বরং প্রতিরোধ করেই এ রোগের প্রাদুর্ভাব প্রশমন করতে হবে। আর এ জন্য সচেতনতাই একমাত্র উপায়।

শনিবার রাজধানীতে এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এ কথা বলেন। ‘বিশ্ব কিডনি দিবস ২০১৮’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে কিডনি বিষয়ক বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা কিডনি এওয়ারনেস মনিটরিং এন্ড প্রিভেনশন সোসাইট (ক্যাম্পস) এর আয়োজন করে।

বৈঠকে বক্তারা বলেন, বিশ্বব্যাপী কিডনি রোগ একটি ভয়াবহ স্বাস্থ্য সমস্যা। প্রতিবছর বিশ্বের প্রায় ৬ লাখ নারী অকাল মৃত্যুবরণ করে কিডনি বিকল হয়ে। সারা বিশ্বে ১৪ শতাংশ নারী পক্ষান্তরে ১২ শতাংশ পুরুষ দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগে আক্রান্ত। বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে নারীরা পিছিয়ে পড়া এবং অবহেলিত।

এ সময় প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা: মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, কিডনি ফাউন্ডেশনের চেয়াম্যান অধ্যাপক ডা: হারুন অর রশিদ, বাংলাদেশ রেনাল এসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা: রফিকুল আলম, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইউরোলজির প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা: এমএ সালাম, দৈনিক প্রথম আলো’র সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম, চলচ্চিত্র অভিনেতা ফেরদৌস প্রমুখ।

ক্যাম্পসের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি অধ্যাপক ডা: এমএ সামাদ গোলটেবিল বৈঠকের সঞ্চালন করেন।

পরে তিনি ‘কিডনি রোগের প্রতিরোধ, প্রতিকার এবং কিডনি রোগ চিকিৎসায় মহিলাদের ক্ষেত্রে বৈষম্য দূরীকরণের উপায়’ নিয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

কিডনি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: হারুন অর রশিদ বলেন, দেশে ব্যাপক সংখ্যক কিডনি রোগীর তুলনায় ডায়ালাইসিস সেন্টার মাত্র ৯৬টি। ১৮ হাজার রোগী এসব সেন্টারে সপ্তাহে দুইবার করে ডায়ালাইসিস পায়। বেসরকারি সেন্টারগুলোতে ৩ হাজার ৫০০ থেকে পাঁচহাজার টাকা পর্যন্ত পর্যন্ত ডায়ালাইসিস মূল্য রাখা হয়। যা নিম্নবিত্ত এমনকি মধ্যবিত্তের জন্য বহন করা অসম্ভব।

তাই বাংলাদেশে ডায়ালাইসিস খরচ কমাতে সরকারি বেসরকারিভাবে বাস্তবিক উদ্যোগ নিতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এছাড়া বৈঠকে আলোচকবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অবাস্ট্যাট্রিক্যাল এন্ড গাইনোলজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা: লায়লা আনজুমান বানু, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট টিমের সাবেক অধিনায়ক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু প্রমুখ।

শীর্ষনিউজ/এইচএস